ত্বকচর্চায় জেনিফার অ্যানিস্টোনের পরামর্শ

জেনিফার অ্যানিস্টোনের ত্বকচর্চায় পরামর্শ

0

সবচেয়ে ব্যয়বহুল আর হাইটেক স্কিন কেয়ার ট্রিটমেন্ট নিয়ে থাকেন জেনিফার অ্যানিস্টোন। কিন্তু ভুলে যান না ত্বকচর্চার একেবারে মৌলিক বিষয়। ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রাখা আর পরিমাণমতো পানি পান করা। এর সঙ্গে আরও একটা বিষয় অবশ্য আছে, যা তাঁর ত্বককে সতেজ রাখে। সেটা হলো কোলাজেন।

তাঁর মতে, কোলাজেন পেপটাইড তাঁর প্রিয়। এটা ব্যবহার করে তিনি যে সুফল পাচ্ছেন, তা বলতে দ্বিধা করেননি। বরং বলেছেন আমার নখ আগের চেয়ে আরও স্বাস্থ্যোজ্জ্বল হয়েছে। কারণ, এটা ভেতর থেকেই কাজ করে। এ জন্যই তিনি এই কোলাজেন পেপটাইড তাঁর স্মুদিতে মিশিয়ে পান করে থাকেন। এ জন্যই তো তিনি গাঁটছড়া বেঁধেছেন ভাইলটাল প্রোটিনস নামের ব্র্যান্ডের সঙ্গে।

আরও দেখুন
1 of 2

নিজের শরীরের পুষ্টি ভেতর থেকে সরবরাহের জন্য বলেছেন এই হলিউড তারকা। আর এ নিয়ে ভাইটাল প্রোটিনসের হয়ে কাজও করছেন তিনি। নেমেছেন প্রচারণায় তাঁর অনুরাগীদের পাশাপাশি অন্যদেরও সচেতন করতে। সবার সঙ্গে শেয়ার করছেন নিজের অভিজ্ঞতা। এ ছাড়া নতুন নতুন পণ্য উদ্ভাবনেও তিনি মনোযোগী।

কিন্তু কী কাজ করে এই কোলাজেন? আসলে শরীরে এই প্রোটিন বিভিন্ন অঙ্গপ্রত্যঙ্গের সুরক্ষায় বিশেষ ভূমিকা রেখে থাকে। চুল পড়া বন্ধ করে, নতুন চুল উঠতে সহায়তা করে। ত্বকে সজীব করে। নখ আর হাড়কে শক্তিশালী করে। বিভিন্ন অস্থিসন্ধির দুর্বলতা দূর করে। তবে সত্যিকারে সতেজ ত্বক পেতে হলে কোলাজেনের বিকল্প নেই বলেই অভিমত অ্যানিস্টনের।

কারণ, ত্বকের পরিচর্যায় ৭০-৮০ শতাংশ ভূমিকা রাখে কোলাজেন। একই সঙ্গে ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখে ও স্থিতিস্থাপকতা বৃদ্ধি করে।তবে বয়োবৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে কোলাজেনের স্বাভাবিক উৎপাদন হ্রাসে পেতে থাকে। এর সঙ্গে যোগ হয় অন্যান্য বিষয়ও যেমন: সূর্যরশ্মি, ধূমপান, মানসিক চাপ ইত্যাদি। ফলে ত্বক নির্জীব হতে শুরু করে।

রিংকল হতে থাকে। এ সময়েই প্রয়োজন হয় কোলাজেন গ্রহণ। অসংখ্য জনপ্রিয় ছবির নায়িকা জেনিফার অ্যানিস্টোনের পরামর্শ ২০২১ সালে নিজের ত্বকস্বাস্থ্যের জন্য সবার ভাবনায় যেন থাকে কোলাজেন। সার্বিক সুস্থতার সঙ্গে ত্বককে প্রাণময় করতেই তিনি সবাইকে দিয়েছেন এই টিপস।

 

 

 

Leave A Reply

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More