সূর্যের আলোতে ত্বক কালো হয় কেন -অজানা সব তথ্য

অজানা অনেক তথ্য একসাথে জেনে নিন

0

- Advertisements -

আমরা জানি যে সুর্যের আলোতে ত্বক কালো হয় কিন্তু কি কারণে ত্বক কালো হয় তা আমাদের অজানা। তাই আজকে আমরা অজানা কিছু জিনিস অর্থাৎ সূর্যের আলোতে ত্বক কালো হয় কেন , চোখে ঠান্ডা লাগে না কেন , বাচ্চারা বেশি ঘুমায় কেন , জলদস্যুদের চোখের বন্ধনি কেন থাকে , আইস্কক্রিম খেলে দাঁতে ঠান্ডা লাগে কেন এই সব জানবো।

আমরা প্রতিনিয়ত ও অনেক নতুন নতুন জিনিস শিখে থাকি। মানুষের  মস্তিষ্ক এমনভাবে তৈরি যাতে সে নতুন নতুন জিনিস শিখতে পারে। আজকে আমরা এমন কিছু বিষয় জানবো যা আমরা প্রতিনিয়ত দেখে থাকি কিন্তু এর আসল উদ্দেশ্য আমরা জানি না।

আজকে সূর্যের আলোতে ত্বক কালো হয় কেন , চোখে ঠান্ডা লাগে না কেন , বাচ্চারা বেশি ঘুমায় কেন , জলদস্যুদের চোখের বন্ধনি কেন থাকে , আইস্কক্রিম খেলে দাঁতে ঠান্ডা লাগে কেন এই সব জানবো। চলুন শুরু করা যাক –

- Advertisements -

চোখে ঠান্ডা লাগে না কেন

পৃথিবীতে এমন কিছু জায়গা রয়েছে যেখানে অতিরিক্ত ঠান্ডার কারণে মানুষ এ পর্যন্ত মারা যায়। মানুষ যতই শক্তিশালী হোক না কেন মানুষের কিন্তু ঠাণ্ডা লাগবে কিন্তু আপনার মনে কি কখনো প্রশ্ন হয়েছে মানুষের চোখে ঠান্ডা লাগে না কেন?

আমাদের চোখের সাদা অংশে রক্ত প্রবাহ অনেক দ্রুত হয়ে থাকে তাই আমাদের চোখে ঠান্ডা অনুভূত হয় না। যদি আমাদের চোখেও ঠান্ডা অনুভুত হত তাহলে সবার প্রথমে বরফশীতল জায়গায় মানুষের চোখ ঠান্ডায় জমে যেত। ঠিক এ কারণে মানু্যহের চোখে ঠান্ডা লাগে না।

বাচ্চারা বেশি ঘুমায় কেন

আপনি হয়তো খেয়াল করে দেখেছেন বাচ্চারা বেশি ঘুমায়। প্রতিদিন একটা সুস্থ মানুষ ৫-৭ ঘণ্টা ঘুমিয়ে থাকে।  কিন্তু বাচ্চারা বড়দের থেকে বেশি ঘুমায় থাকে কেন ? প্রথমত মানুষ তার মেমরিকে শর্ট টার্ম থেকে লং টার্ম এ নিয়ে যাওয়ার জন্য বেশি ঘুমিয়ে থাকে। দ্বিতীয়ত ঘুমানোর কারণে পেশি ডেভেলপ হতে থাকে।

বাচ্চারা ১৪-১৮ ঘণ্টা ঘুমায়। কারণ যখন একটি শিশুর জন্ম গ্রহণ করে থাকে তখন তার ডেভলপমেন্ট শর্ট টার্ম থেক লং টার্ম যাওয়ার জন্য ঘুমের প্রয়োজন হয়। তাই বাচ্চারা দিনে ১৪ থেকে ১৮ ঘন্টা ঘুমিয়ে থাকে।

সূর্যের আলোতে ত্বক কালো হয় কেন

আপনি তো জানেন যে মানুষ কিছুক্ষণ রোদে থাকলে তার ত্বক কালো হয়ে যায়। কিন্তু এখন বাজারে কিছু পণ্য বেরিয়েছে যেগুলো দাবি করে যে এই পণ্য গুলো ব্যবহার করলে রোদে ত্বক কখনোই কাল হবে না। কিন্তু আপনি কি জানেন সূর্যের আলোতে গেলে কেন মানুষের ত্বক কালো হয়ে যায় কেন ?

সূর্যের আলোতে এক ধরনের বেগুনি রশ্মি আছে যা মানুষের ত্বকে থাকা মেলানিনকে ডেমেজ করে দেয়। মানুষের ত্বকে থাকা মেলানিন এমন একটি পদার্থ যা মানুষের ত্বকের রঙ নির্ধারণ করে দেয় যখন সূর্যের রশ্মি মানুষের ত্বকের মেলানিন কে ডেমেজ করে দেয়। আপনি কিছু দিন টানা সূর্যের আলোতে গেলে আপনার ত্বক কালো হয়ে যাবে। ঠিক এ কারণেই মানুষের ত্বক সূর্যের আলোতে গেলে কালো হয়ে যায়।

মেঝের উপর ধূলা কালো দেখায়

আরও দেখুন
1 of 6

- Advertisements -

আপনি জানে ধূলা কি রঙ ? আপনি কি আরো জানেন মেঝের উপর ধূলা কালো দেখায় কেন ?  ধুলা ময়লা আমাদের চতুর্দিকে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। আমরা যতই চেষ্টা করি না কেন ধূলা থেকে বাঁচা অসম্ভব। তাই ঝাড়া মোছা করার অভ্যাসটা থাকা খুবই ভালো।

কিন্তু আপনি কি কখনো খেয়াল করে দেখেছেন কাল মেঝের উপর ধূলা সাদা দেখায় আর সাদা মেঝের উপর ধূলা কালো দেখায়। আসলে ধূলা ব্রাউন কালারের হয়ে থাকে। কিন্তু ধুলার কণাগুলো এতটাই সুক্ষ্ম যে আমাদের চোখ তার ফোকাস  পারে না। তাই যে জায়গার ব্যাকগ্রাউন্ড কাল সে জায়গায় ধূলা সাদা দেখায় আর যে জায়গায় ব্যাকগ্রাউন্ড সাদা সে জায়গায় ধূলা কালো দেখায়।

পাখিদের উড়ে বেড়ানোর প্যাটার্ন কি

আমরা অনেক পাখি উড়ে বেড়ানো দেখি। কিন্তু পাখি উড়ে বেড়ানোর জন্য একটা প্যাটার্ন ফলো করে। আপনি কি জানেন পাখিদের উড়ে বেড়ানোর প্যাটার্ন কি  ? পাখিরা এই পৃথিবীর সুন্দরতম প্রাণীদের মধ্যে একটি। কিন্তু তারা যখন উড়ে বেড়ায় তখন তারা একটি নির্দিষ্ট প্যাটার্ন ফলো করে উড়ে বেড়ায়। সূর্যের আলোতে ত্বক কালো হয় কেন -অজানা সব তথ্য

পাখিরা অধিকাংশ সময়েই একটা ভি শেপ প্যাটার্নে  উড়ে বেড়ানোর চেষ্টা করে। পাখিরা যখন ভি শেপ প্যাটার্নে উড়ে বেড়ানোর চেষ্টা করে তখন পাখিদের পাখার ঝাপটায় যে বাতাস প্রবাহিত হয় তা পিছনের পাখিটিকে ওড়ার জন্য সহায়তা করে। আপনি শুনে অবাক হবেন যে পাখিদের  মাঝে যে থাকে তাকে দলনেতা ধরা হয়।

জলদস্যুদের চোখের বন্ধনি থাকে কেন

জলদস্যুদের চোখের বন্ধনি থাকে কেন  তা আমরা খুব কম লোকই জানি। কিন্তু আমরা সচরাচর কোন মুভিতে দেখে থাকি যে জলদস্যুরা সাধারণত এক চোখ ঢেকে রাখে। এর কারণ যদি আপনি মনে করে থাকেন যে জলদস্যুদের এক চোখ অন্ধ। তাহলে এই ধারণা আপনার ভুল।

কারণ জলদস্যুরা যখন কোনো জাহাজ লুট করার জন্য দূর থেকে দেখে, তখন তারা এক চোখ ব্যবহার করত। কারণ হচ্ছে আমরা সাধারণত যখন কোনো দূরের জিনিস দুই চোখ খোলা রেখে দেখি, তখন আমাদের চোখে তা ফোকাস করতে ২৫ মিনিট সময় লাগে। আর যদি সেটি আমরা এক চোখ বন্ধ রেখে দেখি তাহলে খুব সহজেই দেখা যায়। আর এই কারণেই জলদস্যুদের চোখের বন্ধনি থাকে।

আইস্কক্রিম খেলে দাঁতে ঠান্ডা লাগে কেন

আইস্কক্রিম খেলে দাঁতে ঠান্ডা লাগে কেন আমরা অনেকেই জানি না। গরম থেকে ঠাণ্ডা অনুভূতি পাওয়ার জন্য আমরা সাধারণত আইসক্রিম খেয়ে থাকি। কিন্তু আমরা একটু লক্ষ্য রাখলেই দেখতে পারব যে আইসক্রিম যখন আমরা খেয়ে থাকি তখন দাঁতে একটা শিরশিরে অনুভূতি জাগে। এর কারণ আপনি জানেন কি?

দাঁতে এই ঠাণ্ডা অনুভূতি তা আমাদের মুখে হয় না। এই অনুভূতিটা সম্পূর্ণ আমাদের মস্তিষ্কে হয়ে থাকে। যখন আমরা ঠান্ডা কিছু খেয়ে থাকি তখন আমাদের মুখের ভিতরের নার্ভ অনুভূতি পাওয়ার সাথে সাথেই আমাদের ব্রেইনের ব্লাড ভেসেল এ পৌছায় দেয়। আর এ কারনেই আইস্কক্রিম খেলে দাঁতে ঠান্ডা লাগে।

বন্ধুরা চোখে ঠান্ডা লাগে না কেন , বাচ্চারা বেশি ঘুমায় কেন , সূর্যের আলোতে ত্বক কালো হয় কেন , মেঘের উপর ধূলা কালো দেখায় কেন , পাখিদের উড়ে বেড়ানোর প্যাটার্ন কি , জলদস্যুদের চোখের বন্ধনি থাকে কেন , আইস্কক্রিম খেলে দাঁতে ঠান্ডা লাগে কেন তা আজকে জানলাম। আপনি কি এর আগে এইসব জানতেন আর জানলে কোন বিষয়টা জানতেন তা কমেন্ট করে জানান।

নিয়মিত অজানা তথ্য জানতে আমাদের ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন। ধন্যবাদ

- Advertisements -

Leave A Reply

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More