মেয়েরা কেন খারাপ ছেলেদের পছন্দ করে -রহস্যটি জানুন

মেয়েরা কেন খারাপ ছেলেদের বেশি পছন্দ করে -রহস্যটি জানুন

0

হ্যালো বন্ধুরা, আপনারা সবাই কেমন আছেন? আজকের এই পোস্টে আমরা আলোচনা করবো যে, মেয়েরা কেন খারাপ ছেলেদের পছন্দ করে। সোজা সুজি বলতে গেলে বলতে হয়, যে ছেলে গুলো মেয়েদের শুধু মাত্র ব্যবহার  করে বা মেয়েদের সাথে টাইম পাস করে। মেয়েরা এই রকম খারাপ ছেলেদের কেন বেশি পছন্দ করে?
অথচ যে ছেলেরা অনেক ভালো এবং মন থেকে সত্যিকারের ভালোবাসতে চায়, তাদেরকে মেয়েরা অপছন্দ করে। কেন মেয়েরা ভালো ছেলেদের অপছন্দ করে? চলুন বিস্তারিত জেনে নেই।

মেয়েরা কেন খারাপ ছেলেদের পছন্দ করেঃ

মেয়েরা ভালো মনের ছেলেদের উপর ইম্প্রেস না হয়ে খারাপ ছেলেদের উপর বেশি ইম্প্রেস হয়। এর সব চেয়ে বড় প্রথম কারণ হলো, খারাপ ছেলেরা মেয়েদেরকে পুরো স্বাধীনতা দেয়। খারাপ ছেলেরা কখনো কোন কিছুর ব্যাপারে বাধা দেয় না বা নিষেধ করে না। মেয়ে ভালো বা খারাপ যাই করুক না কেন কোনটাতেই নাক গলায় না বা নিষেধ করে না। বরং মেয়ের যে কোন অভ্যাস, যে কোন আচরণ বা কাজে লোক দেখানো প্রশংসা করে। আর সেটা হাজার খারাপ হলেও এই রকম খারাপ ছেলেরা মেয়ের মন জয় করার জন্য প্রশংসা করে। খারাপ ছেলেরা মেয়েদের কে কোন নিয়ম কানুন বা বাধা নিষেধের বেড়াজালে বন্দি করে রাখে না। আর খারাপ ছেলেদের এই দিকটাই মেয়েদেরকে সব থেকে বেশি ঘায়েল করে ফেলে।

কিন্তু যখন কোন ভালো ছেলে কোন মেয়েকে ভালোবেসে ফেলে, তাহলে তখন সে সত্যিকারেই ভালোবেসে ফেলে। আর তাতে করে কি হয় জানেন? মেয়ের কোন কাজে ভালো হবে বা কিসে মন্দ হবে এসব চিন্তা ঐ ভালো ছেলের মাথায় চেপে বসে। ফলে স্বাভাবিক ভাবেই ভালো ছেলে মেয়েদেরকে বিভিন্ন নিয়ম কানুন বা বাধা নিষেধের বেড়াজালে বেধে দেয়। মেয়ে কোন খারাপ ছেলে বা মেয়ের সাথে মিশলে বা কোন খারাপ কাজ করলে বা কোন কথা না শুওনলে এসব নিয়ে ঝগড়া লাগে। তার কোন খারাপ অভ্যাস থাকলে তা ছেড়ে দেয়ার জন্য ভালো ছেলে চাপ দেয়। সব সময় মেয়ের খারাপ দিক গুলো বা কাজ গুলো ছেড়ে দেয়ার জন্য বলতে থাকে। মাঝে মাঝে ঝগড়া ও হয়। বা মুখের উপর বলে দেয় যে, তোমার এই সব আমার একদম পছন্দ না।

মেয়ের স্বাধীনতা

কিছু নিয়ম কানুনের বেড়া জালে বেধে দেয়ার ফলে মেয়ের স্বাধীনতা কমে যায়। তখন সম্পর্ক টা যেন মেয়েটির পায়ে বেড়ি হয়ে যায়। নিজের স্বাধীনতা কমে যাওয়ার ফলে সে, ছেলেটাকে আস্তে আস্তে অপছন্দ করতে শুরু করে। কারণ সে তার খেয়াল খুশি মত চলতে পারে না। সে মুক্ত আকাশে উড়তে পারে না। তাই ভালো ছেলেদের পরীবর্তে মেয়েরা খারাপ ছেলেদের পছন্দ করে থাকে। কারণ কোন মেয়েই এটা সহ্য করতে পারে না যে, কেউ তার স্বাধীনতা কেড়ে নিক। কেউ তার উপর অতিরিক্ত খবরদারি করুক। কেউ তার কোন কিছু নিয়ে প্রশংসা না করে ঝগরা করুক বা রাগ করে থাকুক। কেউ তাকে অনাকাংখিত নতুন নিয়মের বেড়া জালে আটকে দিক।

এবার আসি দ্বিতীয় প্রসঙ্গেঃ

খারাপ ছেলেদের কয়েক টা গুণ রয়েছে। যেগুলো সব মেয়েরাই পছন্দ করে। অথবা, যে গুণ গুলোর কারণেই তারা খুব সহজে মেয়েদের পটাতে পারে। নিচে এসব গুণ তুলে ধরা হলো।

১। চঞ্চলতাঃ

খারাপ ছেলেরা একটু বেশিই চঞ্চল হয়ে থাকে। এরা কোন কিছু করতে ভয় করে না। এরা যে কোন পরিচিত বা অপরিচিত মেয়ের সাথে হুট করেই কথা বলতে পারে। এবং তাদের কথার জালে খুব সহজেই ফাসাতে পারে।
কিন্তু অপরদিকে ভালো ছেলেরা সব সময় এই সব বিষয়ে একটু ভীতু প্রকৃতির হয়ে থাকে। তারা যার তার সাথে হুট করে কথা বলতে পারে না। এমন কি পরিচিত মেয়ের সাথে কথা বলতেও লজ্জা পায়।

২। মিষ্টি ভাষিঃ

এই ধরনের খারাপ ছেলেরা সবাই মিষ্টি ভাষি হয়। এরা যে কোন মেয়ের সাথে মিষ্টি মিষ্টি কথা বলে খুব সহজেই মেয়ের মনে জায়গা করে নিতে পারে। এরা মিথ্যা কথাও খুব সুন্দর করে সাজিয়ে মিষ্টি ভাষায় বলতে পারে। আর এ সব কারণেই যে কোন মেয়ে খুব সহজেই পটে যায়।

৩। ওপেন মাইন্ডেডঃ

এরা ওপেন মাইন্ডেড বা ফ্রি মাইন্ডেড হয়ে থাকে। সোজা সুজি বলতে গেলে, এরা খোলা খুলি কথা বলে থাকে। এদের লাজ লজ্জা থাকে না। এরা যে কোন খারাপ ব্যাপার বা খারাপ আলাপ মেয়েদের সাথে খোলা খুলি বলে থাকে। আর মেয়েরা এমন ছেলেদের সাথে যে কোন কথা ফ্রি মাইন্ডে বলে থাকে। এই রকম ছেলে গুলো মেয়েরা অনেক পছন্দ করে থাকে।
কিন্তু অপর দিকে ভালো ছেলেরা মেয়েদের সাথে ফ্রি মাইন্ডে কথা বলতে পারে না। যার ফলে মেয়েরা খারাপ ছেলেদের পছন্দ করে এবং ভালো ছেলেদের কাছে মেয়েরা পটেনা।

৪। রসিকতাঃ

খারাপ ছেলেরা অনেক রসিক বা মজাদার হয়ে থাকে। এরা সব সময় মেয়েদের সাথে রঙ ঢং করে কথা বলে থাকে। মেয়েদের সাথে অনেক মজা করতে জানে এরা। মাঝে মধ্যে কোন কথা মেয়ের খারাপ লাগলে, খারাপ ছেলেরা মজা করলাম বলে উড়িয়ে দেয়। এরা সারাক্ষন মেয়েদের কে ইন্টারটেইন করে। আর এটা তো মেয়ে পটানোর সব চেয়ে বড় মূল মন্ত্র।
কিন্তু ভালো ছেলেরা মেয়েদের সাথে মজাদার কথা বলা তো দূরে থাকুক, এরা তো মেয়েদের সাথে কথা বলতেই লজ্জা বা সংকোচ বোধ করে। তাহলে মেয়ে পটবে কি করে? এরা মেয়েদের সাথে খুবই প্রয়োজনীয় কথা ছাড়া অন্য কথা তেমন বলে না।

৫। প্রশংসাঃ

এরকম খারাপ ছেলে মেয়েদের কে যে কোন বিষয়ে প্রশংসা করে মন ভুলাতে এক্সপার্ট। আপনারা হয়তো সবাই জানেন যে, মেয়েদের কে প্রশংসা করলে তারা খুবই খুশি হয়। এর ফলে তাদের মন জয় করা সহজ হয়ে যায়। কিন্তু এই প্রশংসা সব ছেলেরা করতে পারে না। খারাপ ছেলেরা খুব সুন্দর করে সাজিয়ে গুছিয়ে এমন কি মিথ্যে প্রশংসা ও করে থাকে। ফলে তারা খুব অল্প সময়ে যে কোন মেয়েকে ইম্প্রেস করতে পারে।

৬। রঙ চং পোশাকঃ

এরা সব সময় রঙ চং পোশাক পরিধান করে। এরা সব সময় স্টাইলিশ ভাবে চলে। এদের চুলে, চাল চলনে, কথা বার্তায় অনেক স্টাইল লক্ষ্য করা যায়। যার কারণে এরা খুব সহজেই মেয়েদের নজর কেড়ে নেয়। কিন্তু ভালো ছেলেরা সব সময় সাধারণ ভাবে চলে। এরা খারাপ ছেলেদের মত নজর কাড়া স্টাইলে চলে না। এদের কথা বার্তায় পোশাকে কোন রঙ ঢং না থাকায় এরা মেয়েদের নজর কাড়তে পারে না। ফলে এরা সারা জীবন মেয়েদের নজরের আড়ালেই থেকে যায়।

৭। বন্ধু বান্ধবঃ

খারাপ ছেলেদের বন্ধু বান্ধব বেশি থাকে। এরা অনেক ছেলে ও মেয়েদের সাথে মিশে থাকে, চলা ফেরা করে। এরা ছেলে ও মেয়ে উভয় এর সাথেই ফ্রি মাইন্ডে আড্ডা দেয়। এগুলো দেখে যে কোন মেয়ে ভেবে নেয় যে, যেহেতু সে এত ছেলে মেয়েদের সাথে ঘোরা ফেরা করে। সেহেতু অবশ্যই সবাই তাকে পছন্দ করে, তাকে বিশ্বাস করে। আর এর মানে হলো সে নিশ্চই অনেক ভালো ছেলে। তাকে বিশ্বাস করা যায়। আর তখন যে কোন মেয়েই ছেলেটিকে নিঃসন্দেহে বিশ্বাস করে ফেলে। এবং তার সাথে অবাধে মিশতে শুরু করে। আর এ সব কারণেই মেয়েরা ভালো ছেলেদের রেখে ভুল করেই খারাপ ছেলেদের ফাঁদে পা দেয়।
কিন্তু এর পরিনাম শেষে কি হয়? খারাপ ছেলেরা খুব সহজেই মেয়েদের পটিয়ে তাকে ইউজ বা ব্যবহার করা হলে ছেড়ে চলে যায়। আর তখন মেয়েরা বলে যে “সব ছেলেরাই খারাপ”। মেয়েরা এই দোষ দিয়ে সারা জীবন কাঁদে।
অন্য দিকে ভালো ছেলেরা সত্যিকারের ভালোবাসা বুকে নিয়ে গার্লফ্রেন্ডের অভাবে ধুকে ধুকে কষ্ট পেতে থাকে।

আপনি কি জানেন যে, শতকরা ৭০ ভাগ মেয়েই ভুল করে খারাপ ছেলের প্রেমে পড়ে যায়। এবং এর পর ধোকা দিয়ে ঐ মেয়ের জীবন নষ্ট করে দেয়। আর তখন মেয়েরা দোষ দেয় পুরো পুরুষ জাতির উপর।
পরিশেষে আমি মেয়েদের কে একটা কথাই বলতে চাই। দয়া করে আপনারা খারাপ ছেলেদের রঙ ঢং এ না ভুলে ভালো ছেলেদের কে কাছে টেনে নিন। তাদের কে একটু ভালোবাসা দিন। দেখবেন আপনাদের জীবন অনেক সুন্দর হবে।
আর হ্যা, যারা ভালো ছেলে তাদেরকে বলবো না যে, আপনারা মেয়ে পটানোর জন্য খারাপ হয়ে যান। বরং বলব যে, আরে ভাই, অপেক্ষা করুন কেউ না কেউ আপনাকে অবশ্যই বুঝবে। এক জন কে মন থেকে ভালোবাসুন।
জ়য় হোক সত্যিকারের ভালোবাসার।
ভালো থাকবেন।

Leave A Reply

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More